,

ThemesBazar.Com

শহিদুল আলমকে নির্যাতন করা হয়েছে কি না, জানতে চায় হাইকোর্ট

আলোকচিত্রী ও মানবাধিকারকর্মী শহিদুল আলমকে পুলিশি হেফাজতে নির্যাতন করা হয়েছে কি না, সে বিষয়ে তার শারীরিক ও মানসিক স্বাস্থ্য পরীক্ষার প্রতিবেদন জমা দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে হাইকোর্ট। আগামী ১৩ আগস্ট সোমবারের মধ্যে স্বরাষ্ট্র সচিবকে এ প্রতিবেদন জমা দিতে হবে।

 

৯ আগস্ট বৃহস্পতিবার বিচারপতি সৈয়দ মোহাম্মদ দস্তগীর হোসেন ও বিচারপতি মো. ইকবাল কবিরের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এ আদেশ দেয়।

 

শিক্ষার্থীদের চলমান আন্দোলনের সময় ৫ আগস্ট রবিবার রাতে ধানমণ্ডি বাসা থেকে দৃক গ্যালারির ব্যবস্থাপনা পরিচালক এবং পাঠশালা সাউথ এশিয়ান মিডিয়া ইনস্টিটিউটের চেয়ারম্যান শহিদুল আলমকে আটক করে গোয়েন্দা পুলিশ। ‘উদ্দেশ্যমূলক মিথ্যা বক্তব্য’ দেওয়ার অভিযোগে ৬ আগস্ট সোমবার তার বিরুদ্ধে রমনা থানায় আইসিটি আইনে মামলা করা হয়।

 

একই দিনে ডিবি পরিদর্শক ও মামলার তদন্ত কর্মকর্তা আরমান আলী এই আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন আলোকচিত্রীকে আদালতে হাজির করে ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন করেন। শুনানি শেষে ঢাকার অতিরিক্ত মুখ্য মহানগর হাকিম আদালতের বিচারক মো. আসাদুজ্জামান নূর সাত দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

 

৭ আগস্ট মঙ্গলবার শহিদুল আলমের স্ত্রী রেহনুমা আহমেদ রিমান্ডের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে রিট আবেদন করেন। হাইকোর্ট রিটের শুনানি নিয়ে শহিদুল আলমকে চিকিৎসার জন্য বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) পাঠাতে নির্দেশ দেয়। একইসঙ্গে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে বৃহস্পতিবার সকালের মধ্যে স্বাস্থ্য পরীক্ষার প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেয়।

 

বৃহস্পতিবার জমা দেওয়া প্রতিবেদন দেখে আদালত বলে, ‘শহিদুল আলমের স্বাস্থ্যগত অবস্থা ভালো আছে। প্রতিবেদনে অস্বাভাবিক কিছু আসেনি।’

 

ওই সময় আসামিপক্ষের আইনজীবী ব্যারিস্টার সারা হোসনে বলেন, ‘প্রতিবেদনে মানসিক নির্যাতনের বিষয়ে কোনো তথ্য নেই। আর হেফাজতে মৃত্যু ও নিবারণ আইনের ২(৬) অনুযায়ী, নির্যাতন বলতে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতনকে বোঝানো হয়। এ কারণে ২(৬) অনুযায়ী তার পরীক্ষার প্রয়োজন। তা ছাড়া যে রিমান্ড আদেশ ম্যাজিস্ট্রেট দিয়েছেন সেটা আপিল বিভাগের গাইড লাইন ও রায় অনুযায়ী হয় না।’

 

অন্যদিকে রাষ্ট্রপক্ষে অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম শুনানিতে অংশ নিয়ে বলেন, ‘এই রিট আবেদনটি চলতে পারে না। রিট আবেদনে যেসব যুক্তি তুলে ধরা হয়েছে, তা বিচারের জন্য হাইকোর্ট যথাযথ ফোরাম নয়। তার দায়রা জজ আদালতে যাওয়া উচিত ছিল।’

ThemesBazar.Com

     আরও সংবাদ