তামাক নিয়ন্ত্রণে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানের প্রভাব দূর করতে হবে

জনস্বাস্থ্য উন্নয়ন ও কার্যকর তামাক নিয়ন্ত্রণের লক্ষ্যে অনুসরণীয় নীতিমালা গ্রহণ করা জরুরি ও সংশ্লিষ্ট বাস্তবায়নে তামাক কোম্পানি ও সংশ্লিষ্টদের প্রভাবমুক্ত করতে হবে। তা না হলে তামাক নিয়ন্ত্রণ করো কঠিন হবে।

মঙ্গলবার ডাব্লিউবিবি ট্রাস্টের আয়োজনে রায়েরবাজারে সংস্থার নিজ কার্যালয়ে আয়োজিত এফসিটিসি আর্টিকেল ৫.৩ বাস্তবায়নে খসড়া কোড অব কন্ডাক্ট বিষয়ক সভায় বক্তারা এসব কথা বলেন।

ট্রাস্টের পরিচালক গাউস পিয়ারীর সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য রাখেন, আন্তর্জাতিক সংগঠন দ্য ইউনিয়ন এর কারিগারি পরামর্শক অ্যাডভোকেট সৈয়দ মাহবুবুল আলম, তামাক বিরোধী নারী জোটের সমন্বয়ক সাঈদা আক্তার, ইপসার প্রোগ্রাম ম্যানেজার নাজমুল হায়দার।

প্রবন্ধে আমিনুল ইসলাম সুজন বলেন, তামকের বহুমাত্রিক ক্ষতি কমিয়ে আনতে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ২০০৩ সালে চূড়ান্ত করেছে আন্তর্জাতিক তামাক নিয়ন্ত্রণ চুক্তি ‘ফ্রেমওয়ার্ক কনভেনশন অন টোব্যাকো কন্ট্রোল’ (এফসিটিসি)। এর একটি গুরুত্বপূর্ণ আর্টিকেল ৫, যেখানে তামাক নিয়ন্ত্রণের জন্য অনুসরণযোগ্য বাধ্যবাধকতা উল্লেখ রয়েছে। এর অধীন অনুচ্ছেদ ৫.৩।

অ্যাডভোকেট সৈয়দ মাহবুবুল আলম বলেন, তামাক কোম্পানির আসলে কোনো প্রভাব নেই। কারণ, তারা অপরাধী। অপরাধ ধামাচাপা দেয়ার জন্য আইন লঙ্ঘন করে প্রচুর অর্থ ব্যয় করে তামাকজাত প্রণ্যের ব্রান্ড প্রমোশন করছে। অর্থ দিয়ে যতটা প্রভাব বিস্তার করা যায়, তার চেয়ে বেশি প্রভাব বিস্তার করা যায় যদি মানুষের নৈতিক অঙ্গীকার থাকে।
সাঈদা আক্তার বলেন, তামাক নিয়ন্ত্রণ আইন বাস্তবায়ন দ্রুত হচ্ছে। তামাক নিয়ন্ত্রণে আরও অনেকগুলো আইন রয়েছে। এগুলো নিয়েও কাজ করা যেতে পারে। এসব আইন বাস্তবায়নে সরকারের কৃষি, শিল্পসহ অন্যান্য মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে সমন্বয়ের মাধ্যমে কাজ করা দরকার।

নাজমুল হায়দার বলেন, কোড অব কন্ডাক্ট এর মাধ্যমে তামাক কোম্পানিগুলোকে নিয়ন্ত্রণে আনতে হবে। এই খসড়া কপিটি অত্যন্ত ভালো মানের এবং এতে প্রয়োজনীয় অনেক বিষয় চলে এসেছে। এটি দ্রুত অনুমোদন এবং বাস্তবায়ন করা হবে বলে আমি আশাবাদী।

Facebook Comments
Share Button

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



» প্রকাশ হল শুভ- তাহার “ভাল থেকো” সিনেমার অফিসিয়াল পোস্টার

» মামলা করলেন শাওন

» গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে বিএনপি কর্মসূচি দেবে

» হাসপাতালের অনিয়মের তথ্য সংগ্রহ করতে গিয়ে ৭ সাংবাদিক কারাগারে

» ভাষা ও সংস্কৃতিপ্রেমে দীনতার ভয়াবহতা

» পরিবহন ধর্মঘটে অচল খুলনা বিভাগ

» কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে মনোনয়ন পাচ্ছেন যারা

» মেহেরপুরে হেরোইন ও গাঁজাসহ গ্রেপ্তার ৫

» অভিজিৎ হত্যাকাণ্ড: ২ বছরেও গ্রেপ্তার হয়নি খুনিরা

» মাসে ১০০ রিয়াল কর পরিশোধ করতে হবে সৌদি শ্রমিকদের

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সরোয়ার সৈকত
ফ্রেশ মিডিয়া লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান
© ২০১৭ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | ফ্রেশনিউজবিডি.কম
রিনা মঞ্জিল, ৯৩ মালিবাগ, ঢাকা-১২১৭।
মোবাইল: ০১৯১১-৮৮৭৮৪৪
ই-মেইল: news@freshnewsbd.com, freshnewsbd@gmail.com
Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
,

তামাক নিয়ন্ত্রণে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানের প্রভাব দূর করতে হবে

জনস্বাস্থ্য উন্নয়ন ও কার্যকর তামাক নিয়ন্ত্রণের লক্ষ্যে অনুসরণীয় নীতিমালা গ্রহণ করা জরুরি ও সংশ্লিষ্ট বাস্তবায়নে তামাক কোম্পানি ও সংশ্লিষ্টদের প্রভাবমুক্ত করতে হবে। তা না হলে তামাক নিয়ন্ত্রণ করো কঠিন হবে।

মঙ্গলবার ডাব্লিউবিবি ট্রাস্টের আয়োজনে রায়েরবাজারে সংস্থার নিজ কার্যালয়ে আয়োজিত এফসিটিসি আর্টিকেল ৫.৩ বাস্তবায়নে খসড়া কোড অব কন্ডাক্ট বিষয়ক সভায় বক্তারা এসব কথা বলেন।

ট্রাস্টের পরিচালক গাউস পিয়ারীর সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য রাখেন, আন্তর্জাতিক সংগঠন দ্য ইউনিয়ন এর কারিগারি পরামর্শক অ্যাডভোকেট সৈয়দ মাহবুবুল আলম, তামাক বিরোধী নারী জোটের সমন্বয়ক সাঈদা আক্তার, ইপসার প্রোগ্রাম ম্যানেজার নাজমুল হায়দার।

প্রবন্ধে আমিনুল ইসলাম সুজন বলেন, তামকের বহুমাত্রিক ক্ষতি কমিয়ে আনতে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ২০০৩ সালে চূড়ান্ত করেছে আন্তর্জাতিক তামাক নিয়ন্ত্রণ চুক্তি ‘ফ্রেমওয়ার্ক কনভেনশন অন টোব্যাকো কন্ট্রোল’ (এফসিটিসি)। এর একটি গুরুত্বপূর্ণ আর্টিকেল ৫, যেখানে তামাক নিয়ন্ত্রণের জন্য অনুসরণযোগ্য বাধ্যবাধকতা উল্লেখ রয়েছে। এর অধীন অনুচ্ছেদ ৫.৩।

অ্যাডভোকেট সৈয়দ মাহবুবুল আলম বলেন, তামাক কোম্পানির আসলে কোনো প্রভাব নেই। কারণ, তারা অপরাধী। অপরাধ ধামাচাপা দেয়ার জন্য আইন লঙ্ঘন করে প্রচুর অর্থ ব্যয় করে তামাকজাত প্রণ্যের ব্রান্ড প্রমোশন করছে। অর্থ দিয়ে যতটা প্রভাব বিস্তার করা যায়, তার চেয়ে বেশি প্রভাব বিস্তার করা যায় যদি মানুষের নৈতিক অঙ্গীকার থাকে।
সাঈদা আক্তার বলেন, তামাক নিয়ন্ত্রণ আইন বাস্তবায়ন দ্রুত হচ্ছে। তামাক নিয়ন্ত্রণে আরও অনেকগুলো আইন রয়েছে। এগুলো নিয়েও কাজ করা যেতে পারে। এসব আইন বাস্তবায়নে সরকারের কৃষি, শিল্পসহ অন্যান্য মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে সমন্বয়ের মাধ্যমে কাজ করা দরকার।

নাজমুল হায়দার বলেন, কোড অব কন্ডাক্ট এর মাধ্যমে তামাক কোম্পানিগুলোকে নিয়ন্ত্রণে আনতে হবে। এই খসড়া কপিটি অত্যন্ত ভালো মানের এবং এতে প্রয়োজনীয় অনেক বিষয় চলে এসেছে। এটি দ্রুত অনুমোদন এবং বাস্তবায়ন করা হবে বলে আমি আশাবাদী।

Facebook Comments
Share Button

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



ফেসবুকে আমরা

সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সরোয়ার সৈকত
ফ্রেশ মিডিয়া লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান
© ২০১৭ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | ফ্রেশনিউজবিডি.কম
রিনা মঞ্জিল, ৯৩ মালিবাগ, ঢাকা-১২১৭।
মোবাইল: ০১৯১১-৮৮৭৮৪৪
ই-মেইল: news@freshnewsbd.com, freshnewsbd@gmail.com

Design & Developed BY PopularITLimited