কর্মস্থলে আরো সম্মান পেতে এই ১০ কাজ করা বাদ দিন

আপনি যদি কর্মস্থলে আরো বেশি সম্মান পেতে চান তাহলে আজই এই ১০ অভ্যাস ত্যাগ করুন :

 

১. কথা বলার সময় কাউকে থামিয়ে দেবেন না : এটা হলো অসম্মানের চূড়ান্ত নিদর্শন। সুতরাং এটা করা বন্ধ করুন। এখনই। আপনার জিহ্বাটি কামড়ে ধরুন এবং কথা শোনা এবং বুঝায় আপনার সময় ব্যয় করুন। উত্তর দেবেন না।

 

২. মিটিংয়ে দেরিতে হাজির হওয়া : আপনার কাছে কেমন লাগে যখন কেউ আপনার সঙ্গে নির্দিষ্ট সময়ের পর দেখা করতে আসেন? তাহলে আপনিও কেন অন্যদের সঙ্গে একই কাজ করছেন?

 

৩. দেরিতে মিটিং শুরু করা : এতে লোকে তাদের সময় অপচয় করার কারণে আপনার ওপর শুধু রাগান্বিতই হবেন।

 

৪. কোনো এজেন্ডা বা নির্দিষ্ট উদ্দেশ্য ছাড়াই মিটিং করা : আপনার যদি উদ্দেশ্য থাকে সহকর্মীদেরকে (বা বস) আপনি ক্ষিপ্ত করে ছাড়বেন তাহলে এমনটা করুন। কিন্তু এই অভ্যাস ভাঙ্গার উপায় কী? কোনো এজেন্ডা বা নির্দিষ্ট উদ্দেশ্য ছাড়াই আপনি যে মিটিংগুলো করছেন সেগুলোর খরচের একটি পরিমাপ করুন। মিটিংয়ে অংশগ্রহণকারীরা প্রতি ঘণ্টায় কত টাকা বেতন পান সে হিসেবে তারা মিটিংয়ে অংশগ্রহণ করার ফলে কত টাকা বেতন থেকে বঞ্চিত হয়েছেন তা নির্ণয় করুন। আপনি কত টাকা অপচয় করছেন তা দেখে আপনি বিস্মিত হবেন।

 

৫. মিটিংয়ে খুব বেশি কথা বলা : যারা শুধু নিজের কথা বলতে চান এবং অন্যকে নিজের কথা শুনাতে চান তাদেরকে কেউই পছন্দ করেন না। সুতরাং মিটিংয়ে উপস্থিত সকলকেই কথা বলার সুযোগ করে দিন। প্রতিটি বিষয়ে আলোচনা শেষে বিষয়টি নিয়ে সকলের মতামত নিন।

 

৬. মিটিংয়ের সময় একাধিক কাজ করা : একই সঙ্গে একাধিক কাজ ফলপ্রদ নয়। এর ফলে সার্বিক উৎপাদনশীলতা ৪০% কমে আসে। আর আপনি যদি মিটিংয়ে বসে ই-মেইল চেক করেন বা অন্য কোনো কাজ করেন তা অন্যদের জন্য খুবই অসম্মানজনক। এ থেকে অন্যরা ধরে নেবেন যে আপনার কাছে ই-মেইল চেক করার চেয়ে মিটিং কম গুরুত্বপূর্ণ।

 

৭. ব্রেক রুমে নোংরা থালা-বাসন বা খাবার পাত্র রেখে আসা : আপনার মা আপনার অফিসে কাজ করেন না। আপনি এখন একজন প্রাপ্তবয়স্ক মানুষ। আর পরিপক্ক প্রাপ্তবয়স্করা নিজেদের করা নোংরা নিজেরাই পরিষ্কার করেন। এর মধ্যে আপনার নোংরা কফির মগ এবং থালা-বাসন ধোয়াও অন্তর্ভুক্ত।

 

৮. সহকর্মীদের সঙ্গে চিৎকার-চেঁচামেচি করা : কর্মস্থলে কখনোই সহকর্মীদের সঙ্গে চিৎকার-চেঁচামেচি গ্রহণযোগ্য নয়। আপনি যদি সহকর্মীদের সঙ্গে যৌক্তিক কোনো আলোচনা করতে না পারেন তাহলে নিজেকে সময় দিন। যতদিন পর্যন্ত যৌক্তিক আলোচনার সক্ষমতা অর্জন না করছেন ততদিন অপেক্ষা করুন।

 

৯. নিজের কিউবিকলে বসে উচ্চস্বরে মিটিং করা : আপনার কিউবিকল প্রতিবেশীদের কাছে উপদ্রবী কীট পতঙ্গ হয়ে উঠবেন না। সম্মেলন কক্ষে বা দলবদ্ধ তৎপরতার জন্য নির্ধারিত স্থানে মিটিং করুন।

 

১০. ডেডলাইন মিস করা : অন্যরা যখন আপনার কাজের ওপর নির্ভরশীল তখন নির্দিষ্ট সময় সীমার মধ্যে কাজ শেষ করতে না পারাটা বেশ ক্ষতিকর। এতে টিমের সকলেই বাধাগ্রস্ত হতে পারে। এমনকি আপনার বসও সিনিয়র ব্যবস্থাপনা বিভাগের সঙ্গে সমস্যায় পড়ে যেতে পারেন।

 

এই ১০টি কাজ কর্মস্থলে আপনার সম্মান অর্জনের ক্ষেত্রে বড় প্রতিবন্ধক হতে পারে। তবে সম্মান অর্জনের জন্য আপনাকে অবশ্যই অন্যদের সঙ্গে সম্মানজনক আচরণ করতে হবে। সুতরাং এমন যেকোনো আচরণের মোকাবিলায় যথেষ্ট সময় নিন যা আপনাকে ক্যারিয়ারে পেছনে টেনে ধরবে।
সূত্র : ফোবর্স

Facebook Comments
Share Button

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



» প্রকাশ হল শুভ- তাহার “ভাল থেকো” সিনেমার অফিসিয়াল পোস্টার

» মামলা করলেন শাওন

» গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে বিএনপি কর্মসূচি দেবে

» হাসপাতালের অনিয়মের তথ্য সংগ্রহ করতে গিয়ে ৭ সাংবাদিক কারাগারে

» ভাষা ও সংস্কৃতিপ্রেমে দীনতার ভয়াবহতা

» পরিবহন ধর্মঘটে অচল খুলনা বিভাগ

» কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে মনোনয়ন পাচ্ছেন যারা

» মেহেরপুরে হেরোইন ও গাঁজাসহ গ্রেপ্তার ৫

» অভিজিৎ হত্যাকাণ্ড: ২ বছরেও গ্রেপ্তার হয়নি খুনিরা

» মাসে ১০০ রিয়াল কর পরিশোধ করতে হবে সৌদি শ্রমিকদের

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সরোয়ার সৈকত
ফ্রেশ মিডিয়া লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান
© ২০১৭ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | ফ্রেশনিউজবিডি.কম
রিনা মঞ্জিল, ৯৩ মালিবাগ, ঢাকা-১২১৭।
মোবাইল: ০১৯১১-৮৮৭৮৪৪
ই-মেইল: news@freshnewsbd.com, freshnewsbd@gmail.com
Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
,

কর্মস্থলে আরো সম্মান পেতে এই ১০ কাজ করা বাদ দিন

আপনি যদি কর্মস্থলে আরো বেশি সম্মান পেতে চান তাহলে আজই এই ১০ অভ্যাস ত্যাগ করুন :

 

১. কথা বলার সময় কাউকে থামিয়ে দেবেন না : এটা হলো অসম্মানের চূড়ান্ত নিদর্শন। সুতরাং এটা করা বন্ধ করুন। এখনই। আপনার জিহ্বাটি কামড়ে ধরুন এবং কথা শোনা এবং বুঝায় আপনার সময় ব্যয় করুন। উত্তর দেবেন না।

 

২. মিটিংয়ে দেরিতে হাজির হওয়া : আপনার কাছে কেমন লাগে যখন কেউ আপনার সঙ্গে নির্দিষ্ট সময়ের পর দেখা করতে আসেন? তাহলে আপনিও কেন অন্যদের সঙ্গে একই কাজ করছেন?

 

৩. দেরিতে মিটিং শুরু করা : এতে লোকে তাদের সময় অপচয় করার কারণে আপনার ওপর শুধু রাগান্বিতই হবেন।

 

৪. কোনো এজেন্ডা বা নির্দিষ্ট উদ্দেশ্য ছাড়াই মিটিং করা : আপনার যদি উদ্দেশ্য থাকে সহকর্মীদেরকে (বা বস) আপনি ক্ষিপ্ত করে ছাড়বেন তাহলে এমনটা করুন। কিন্তু এই অভ্যাস ভাঙ্গার উপায় কী? কোনো এজেন্ডা বা নির্দিষ্ট উদ্দেশ্য ছাড়াই আপনি যে মিটিংগুলো করছেন সেগুলোর খরচের একটি পরিমাপ করুন। মিটিংয়ে অংশগ্রহণকারীরা প্রতি ঘণ্টায় কত টাকা বেতন পান সে হিসেবে তারা মিটিংয়ে অংশগ্রহণ করার ফলে কত টাকা বেতন থেকে বঞ্চিত হয়েছেন তা নির্ণয় করুন। আপনি কত টাকা অপচয় করছেন তা দেখে আপনি বিস্মিত হবেন।

 

৫. মিটিংয়ে খুব বেশি কথা বলা : যারা শুধু নিজের কথা বলতে চান এবং অন্যকে নিজের কথা শুনাতে চান তাদেরকে কেউই পছন্দ করেন না। সুতরাং মিটিংয়ে উপস্থিত সকলকেই কথা বলার সুযোগ করে দিন। প্রতিটি বিষয়ে আলোচনা শেষে বিষয়টি নিয়ে সকলের মতামত নিন।

 

৬. মিটিংয়ের সময় একাধিক কাজ করা : একই সঙ্গে একাধিক কাজ ফলপ্রদ নয়। এর ফলে সার্বিক উৎপাদনশীলতা ৪০% কমে আসে। আর আপনি যদি মিটিংয়ে বসে ই-মেইল চেক করেন বা অন্য কোনো কাজ করেন তা অন্যদের জন্য খুবই অসম্মানজনক। এ থেকে অন্যরা ধরে নেবেন যে আপনার কাছে ই-মেইল চেক করার চেয়ে মিটিং কম গুরুত্বপূর্ণ।

 

৭. ব্রেক রুমে নোংরা থালা-বাসন বা খাবার পাত্র রেখে আসা : আপনার মা আপনার অফিসে কাজ করেন না। আপনি এখন একজন প্রাপ্তবয়স্ক মানুষ। আর পরিপক্ক প্রাপ্তবয়স্করা নিজেদের করা নোংরা নিজেরাই পরিষ্কার করেন। এর মধ্যে আপনার নোংরা কফির মগ এবং থালা-বাসন ধোয়াও অন্তর্ভুক্ত।

 

৮. সহকর্মীদের সঙ্গে চিৎকার-চেঁচামেচি করা : কর্মস্থলে কখনোই সহকর্মীদের সঙ্গে চিৎকার-চেঁচামেচি গ্রহণযোগ্য নয়। আপনি যদি সহকর্মীদের সঙ্গে যৌক্তিক কোনো আলোচনা করতে না পারেন তাহলে নিজেকে সময় দিন। যতদিন পর্যন্ত যৌক্তিক আলোচনার সক্ষমতা অর্জন না করছেন ততদিন অপেক্ষা করুন।

 

৯. নিজের কিউবিকলে বসে উচ্চস্বরে মিটিং করা : আপনার কিউবিকল প্রতিবেশীদের কাছে উপদ্রবী কীট পতঙ্গ হয়ে উঠবেন না। সম্মেলন কক্ষে বা দলবদ্ধ তৎপরতার জন্য নির্ধারিত স্থানে মিটিং করুন।

 

১০. ডেডলাইন মিস করা : অন্যরা যখন আপনার কাজের ওপর নির্ভরশীল তখন নির্দিষ্ট সময় সীমার মধ্যে কাজ শেষ করতে না পারাটা বেশ ক্ষতিকর। এতে টিমের সকলেই বাধাগ্রস্ত হতে পারে। এমনকি আপনার বসও সিনিয়র ব্যবস্থাপনা বিভাগের সঙ্গে সমস্যায় পড়ে যেতে পারেন।

 

এই ১০টি কাজ কর্মস্থলে আপনার সম্মান অর্জনের ক্ষেত্রে বড় প্রতিবন্ধক হতে পারে। তবে সম্মান অর্জনের জন্য আপনাকে অবশ্যই অন্যদের সঙ্গে সম্মানজনক আচরণ করতে হবে। সুতরাং এমন যেকোনো আচরণের মোকাবিলায় যথেষ্ট সময় নিন যা আপনাকে ক্যারিয়ারে পেছনে টেনে ধরবে।
সূত্র : ফোবর্স

Facebook Comments
Share Button

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



ফেসবুকে আমরা

সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সরোয়ার সৈকত
ফ্রেশ মিডিয়া লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান
© ২০১৭ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | ফ্রেশনিউজবিডি.কম
রিনা মঞ্জিল, ৯৩ মালিবাগ, ঢাকা-১২১৭।
মোবাইল: ০১৯১১-৮৮৭৮৪৪
ই-মেইল: news@freshnewsbd.com, freshnewsbd@gmail.com

Design & Developed BY PopularITLimited